Channel 786 | চ্যানেল ৭৮৬ | Community Bangla Newspaper

যুক্তরাষ্ট্রে শিক্ষক সংকট নিরসনে তহবিল বাড়ছে

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ১৯:৩৫, ১১ জুলাই ২০২১

যুক্তরাষ্ট্রে শিক্ষক সংকট নিরসনে তহবিল বাড়ছে

যুক্তরাষ্ট্রের শিক্ষা বিভাগ শিক্ষকদের সহায়তা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ‘টিচগ্রান্ট’ কর্মসূচির নিয়মে শিথিলতা নিয়ে এসেছে। এ কর্মসূচির আওতায় শিক্ষকেরা উচ্চশিক্ষা গ্রহণ করতে পারেন। তবে নিয়মের সামান্য লঙ্ঘনে অনুদান সহযোগিতা ঋণ হিসেবে পরিণত হওয়ার বিপাকে পড়তে হচ্ছিল শিক্ষকদের। 

শিক্ষকদের জন্য ‘দ্য টিচ গ্রান্ট’ শিক্ষার্থীদের জন্য দেওয়া অন্যান্য ফেডারেল অনুদানের চেয়ে ভিন্ন। এ অনুদান গ্রহণ করার মাধ্যমে শিক্ষা পরিষেবায় নিয়োজিত থাকার শর্ত পালন করতে হয়। এ কর্মসূচির আওতায় কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা যদি নিম্ন-আয়ের শিক্ষার্থীদের স্কুলে উচ্চ-চাহিদার বিষয় পড়াতে রাজি হন, তবে তাঁরা বছরে চার হাজার ডলার পর্যন্ত অনুদান পেতে পারেন। শর্ত হচ্ছে, স্নাতক করার পর আট বছরের মধ্যে কমপক্ষে চার বছরের জন্য উক্ত বিদ্যালয়ে তাঁকে পড়াতে হবে। যদি তাঁরা সেই শর্ত না মানেন বা নিয়মিত প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা দিতে ব্যর্থ হন, তবে তাঁদের এ অনুদান ফেডারেল ঋণে পরিণত হবে। যা সম্পূর্ণ সুদসহ পরিশোধ করতে হবে। কর্মসূচি চালু হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত দুই লাখের বেশি শিক্ষার্থীকে অনুদান দেওয়া হয়েছে। 

ক্ষমতায় আসার পর পরই প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ট্রাম্প প্রশাসনের বিধিগুলোর অনেকটাই পরিবর্তন করেছেন। তবে শিক্ষাক্ষেত্রে ট্রাম্প সময়ে চালু হওয়া এ নিয়মটির পরিবর্তন যুক্তরাষ্ট্রের শিক্ষকদের জন্য একটি ইতিবাচক দিক বলে মনে করা হচ্ছে।

এডুকেশন সেক্রেটারি মিগুয়েল কার্ডোনা বলেন, ‘হোয়াইট হাউস এখন কর্মসূচির জন্য তহবিল বাড়িয়ে এবং শিক্ষকের ঘাটতি নিরসনে অন্যান্য নীতি গ্রহণ করে এটিকে আরও এক ধাপ এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য কাজ করছে।’

২০১৫ সালে ফেডারেল ওয়াচডগ এজেন্সি তদন্ত করে দেখেছে, হাজার হাজার অনুদান ঋণে রূপান্তরিত হয়েছে। তারপরে উভয় পক্ষের আইনজীবী বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করেন। ২০১৯ সাল পর্যন্ত দ্য টিচ গ্রান্ট প্রোগ্রামের মাধ্যমে প্রদত্ত অনুদানের প্রায় অর্ধেকই ঋণে রূপান্তরিত হয়েছে।

শিক্ষা বিভাগের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, অনেক ক্ষেত্রে কেবল প্রাপকেরা তাঁদের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা না দেওয়ার কারণেই স্বয়ংক্রিয়ভাবে অনুদান ঋণে পরিণত হয়েছে।

নতুন নীতিমালা কার্যকর হওয়ায় এখন সাম্প্রতিক কলেজ স্নাতকদের আর শর্ত দেওয়া ফরমটি জমা দিতে হবে না। যেখানে লেখা থাকত স্নাতক ডিগ্রি নেওয়ার ১২০ দিনের মধ্যেই অনুদান গ্রহণকারীকে শিক্ষা প্রদান শুরু করতে হবে। তবে একবার পড়াতে শুরু করলে, তাঁদের শিক্ষকতায় নিয়োজিত এমন বিষয় প্রমাণ করতে বার্ষিক প্রতিবেদন অবশ্যই পূরণ করে জমা করতে হবে। নতুন নিয়মে বার্ষিক প্রতিবেদন জমা দিতে ব্যর্থ হলে তাঁদের অনুদান স্বয়ংক্রিয়ভাবে ঋণে পরিণত হবে না।

গত সপ্তাহে শিক্ষা বিভাগের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, নতুন বিধিতে এখন অনুদানটি ঋণে পরিণত হওয়ার কারণ হবে যদি শিক্ষার্থীরা এটির জন্য অনুরোধ করেন। অথবা অনুদান গ্রহীতা আট বছরের সময়সীমার মধ্যে চার বছরের অধ্যাপনা শেষ করতে ব্যর্থ হন।

শিক্ষার্থীদের অনুদান যদি কোনো কারণে ঋণে পরিণত হয় তবে পুনর্বিবেচনার জন্য শিক্ষার্থীরা অনুরোধ জানাতে পারবেন। এ ক্ষেত্রে শিক্ষা বিভাগ শিক্ষার্থীদের বছরের কিছুটা অংশ কাজ করে থাকলেও, পুরো শিক্ষা বছরের জন্য ক্রেডিট দিতে পারে।

প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন তাঁর আমেরিকান ফ্যামিলি প্ল্যানের মাধ্যমে প্রোগ্রামটি সম্প্রসারণের প্রস্তাব দিয়েছেন। তাঁর প্রস্তাব কলেজ জুনিয়র, সিনিয়র এবং সব স্নাতক শিক্ষার্থীদের অনুদানের আকার দ্বিগুণ করে আট হাজার ডলার করে দেওয়া হবে।


চ্যানেল ৭৮৬ এর নিউজ রুম এ যোগাযোগ করতে ই মেইল করুন এই ঠিকানায় channel786new[email protected] । আপনার পন্য বা সেবার প্রচারে বিজ্ঞাপন প্রচারের জন্য কল করুন +1 (718) 355-9232 এই নাম্বারে।

সংবাদটি শেয়ার করুনঃ